ডাটা < উৎপাদন পদ্ধতি

ডাটা সংগ্রহ ও করণীয়

ভাল স্বাদ পাওয়ার জন্য পাতা নরম বা মোলায়েম অবস্থায় শাক সংগ্রহ করতে হবে। কীটনাশক প্রয়োগ করে থাকলে ৫-৭ দিন পর শাক সংগ্রহ করতে হবে। ফলনঃ বিঘা প্রতি ৩৩-৪০ মণ বীজ উৎপাদন ও সরক্ষণঃ ১। দুটি জাতের মধ্যে ৫০০ মি. দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। ২। বীজ উৎপাদনের জন্য মার্চের প্রথম সপ্তাহে বীজ বপন করতে হবে; ৩। বীজ উৎপাদনের [...]

ডাটা সংগ্রহ ও করণীয়২০২১-০২-১৫T১৯:০৫:০৬+০৬:০০

ডাঁটা চাষে অন্যান্য পরিচর্যা

গাছ পাতলাকরণ ও আগাছা দমনঃ বীজ বপনের এক সপ্তাহ পর গাছ পাতলা করণ ও আগাছা পরিষ্কার করতে হবে। সারিতে ৫সেমি. পর পর চারা রেখে পাতলা করে দিতে হবে। জমির উপর চটা লেগে গেলে ভেঙ্গেদিতে হবে। এতে করে দ্রুত গাছ বৃদ্ধি পাবে এবং গোড়া পচা রোগ থেকে রক্ষা পাবে। পানি সেচঃ শুষ্ক মৌসুমে এক সপ্তাহ পর [...]

ডাঁটা চাষে অন্যান্য পরিচর্যা২০২১-০২-১৫T১৯:১১:৪২+০৬:০০

ডাঁটা চাষে সার ব্যবস্থাপনা

ডাঁটার ভাল ফলনের জন্য শতাংশ (ডেসিমল) প্রতি নিম্নোক্ত হারে সার প্রয়োগ করতে হবে- গ্রাম বা কেজি যেকোন একটি অনুসরণ করতে হবে। এলাকা বা মৃত্তিকা ভেদে সারের পরিমাণে ভিন্নতা থাকতে পারে। ​ সারের নাম সারের পরিমাণ মন্তব্য পচা গোবর/কম্পোস্ট ৪০ কেজি অধিকতর তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন। । এলাকা বা মৃত্তিকা ভেদে সারের পরিমাণে ভিন্নতা থাকতে পারে। [...]

ডাঁটা চাষে সার ব্যবস্থাপনা২০২১-০২-১৫T১৯:০৭:২৪+০৬:০০

ডাটার বীজ বপন পদ্ধতি

রবি (শীতকালে) ও খরিফ (গ্রীষ্মকালে) উভয় মৌসুমে লাল শাকের চাষ করা যায়। বপন সময়ঃ বছরের যেকোন সময় চাষ করা যায়। তবে বেশী ফলনের জন্য- খরিফ মৌসুম (মার্চ-এপ্রিল) মাসে বপন করতে হয় ও রবি মৌসুম (সেপ্টেম্বর-অক্টোবর) মাসে বপন করতে হয়। বীজ হারঃ বিঘা প্রতি ১৯৮-৩৩০ গ্রাম বীজ প্রয়োজন অথবা, শতাংশ প্রতি ৬-১০ গ্রাম বীজ প্রয়োজন। জমি [...]

ডাটার বীজ বপন পদ্ধতি২০২১-০২-১৬T০৭:১২:৩২+০৬:০০

ডাটার জাত পরিচিতি

জাতের নাম ছবিতে ক্লিক করুন গড় জীবনকাল (দিন) গড় ফলন বিঘা প্রতি বারি ডাঁটা -১ (লাবনী) ৫০-৬০ (বপনের ৪০-৪৫ দিন পর খাওয়ার উপযোগী হয়। চৈত্র-আষাঢ় মাসে বীজ বপন করতে হয়।) ১২৫-১৫০ মণ কান্ড খাড়া, হালকা বেগুনী, নরম ও কম আঁশযুক্ত। দ্রুত বর্ধনশীল জাত। বীজ ডিম্বাকৃতির উজ্জ্বল কালো বর্ণের। খরিফ মৌসুমে সারাদেশ চাষ করা যায়। বারি ডাঁটা -২ শাকঃ [...]

ডাটার জাত পরিচিতি২০২১-০২-১৬T০৭:১২:২৩+০৬:০০
Go to Top