পালংশাক < উৎপাদন পদ্ধতি

পালংশাকের উৎপাদন খরচ

* ১বিঘা (৩৩ শতাংশ) জমিতে ফসল উৎপাদন খরচ খরচের খাত পরিমাণ আনুমানিক মূল্য (টাকা) বীজ ৩ কেজি ১২০ জমি তৈরি ------- ৯০০ পানি সেচ আনুমানিক ৬ ঘন্টা করে দুই বার (প্রতি ঘন্টা ৫০-১০০টকা) ৬০০-১২০০ শ্রমিক ৩জন (প্রতিজন=২০০ টাকা) ৬০০ সার প্রয়োজন অনুসারে জৈব সার এই সার বাড়িতেই তৈরি করা সম্ভব। তাই এর জন্য অতিরিক্ত অর্থের প্রয়োজন [...]

পালংশাকের উৎপাদন খরচ২০২১-০২-১৫T১৯:১৯:৫৯+০৬:০০

পালংশাক সংগ্রহ ও করণীয়

ফসল সংগ্রহ: বীজ বপনের এক মাস পর থেকে পালংশাক সংগ্রহ করা যায় এবং গাছে ফুল না আসা পর্যন্ত যে কোনো সময় সংগ্রহ করা যায়। ফলন: প্রতি আলে⇒ ৮-১০ কেজি প্রতি শতকে⇒ ২৮-৩৭ কেজি প্রতি একরে⇒ ২৮০০-৩৮০০ কেজি প্রতি হেক্টরে⇒ ৭-৯ টন তথ্যসূত্রঃ এগ্রোবাংলা.কম

পালংশাক সংগ্রহ ও করণীয়২০২১-০২-১৫T১৯:২০:১৩+০৬:০০

পালংশাক চাষে অন্যান্য পরিচর্যা

আগাছা নিধন: জমিতে আগাছা দেখা দিলেই তা তুলে ফেলতে হবে। সার উপরি প্রয়োগ: সময় মতো নিয়মানুযায়ী সার উপরিপ্রয়োগ করতে হবে। সেচ প্রয়োগ: এ শাকের জন্য প্রচুর পানির প্রয়োজন হয়। তাই সারের উপরিপ্রয়োগের আগে মাটির ‘জো’ অবস্থা বুঝে সেচ দেওয়া প্রয়োজন। চারা রোপণের পর হালকা সেচ দেওয়া প্রয়োজন। শূন্যস্থান পূরণ: কোনো স্থানের চারা মরে গেলে অথবা [...]

পালংশাক চাষে অন্যান্য পরিচর্যা২০২১-০২-১৫T১৯:২০:২৯+০৬:০০

পালংশাক চাষে সার ব্যবস্থাপনা

পালং শাকের ভাল ফলন পাওয়ার জন্য প্রতি শতাংশ (ডেসিমাল) জমির জন্য নিম্নোক্ত হারে সার প্রয়োগ করতে হবেঃ সারের নাম সারের পরিমাণ মন্তব্য পচা গোবর/কম্পোস্ট ৪০ কেজি অধিকতর তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন। এলাকা বা মৃত্তিকাভেদে সারের পরিমাণে কম-বেশী হতে পারে।     টিএসপি ১.০ কেজি ইউরিয়া ০.৫ কেজি এমওপি/পটাশ ০.৫ কেজি   প্রয়োগ পদ্ধতিঃ » ইউরিয়া ছাড়া [...]

পালংশাক চাষে সার ব্যবস্থাপনা২০২১-০২-১৭T১৯:০৪:৫১+০৬:০০

পালংশাকের বপন পদ্ধতি

মাটির প্রকৃতিঃ দো-আঁশ এবং এঁটেল মাটি পালংশাক চাষের জন্য উপযোগী।  বীজ বপনের সময়: ভাদ্র-আশ্বিন (আগস্ট মাসের মাঝামাঝি থেকে অক্টোবর মাসের মাঝামাঝি) মাসের মধ্যে বীজ বপন করা হয়। বীজ বপনের হার: প্রতি আলে ⇒৩৫-৪০ গ্রাম প্রতি শতকে ⇒১১৭ গ্রাম প্রতি একরে ⇒৯-১১ কেজি প্রতি হেক্টরে ⇒২৫-৩০ কেজি বীজ বপনের দূরত্ব: ১০ সেমি দূরে দূরে বীজ বপন [...]

পালংশাকের বপন পদ্ধতি২০২১-০২-১৫T১৯:২০:৪৩+০৬:০০

পালংশাকের জাত পরিচিতি

পালংশাকের জাত: পুষা জয়ন্তী, কপি পালং, গ্রিন, সবুজ বাংলা ও টকপালং। এছাড়া আছে নবেল জায়েন্ট, ব্যানার্জি জায়েন্ট, পুষ্প জ্যোতি ইত্যাদি। জাতের নাম জীবনকাল (দিন) বিঘা প্রতি ফলন অন্যান্য বৈশিষ্ট্যাবলী সবুজ বাংলা ৩০-৩৫ সারা বছর - অনেক দেরীতে ফুল আসে, গোড়াথেকে পুনরায় ফলন হয় কপি পালং ২৫-৩০ সারা বছর ৯০-১০৫ মণ দ্রুত বর্ধনশীল, আকর্ষণীয় সবুজ সাথী [...]

পালংশাকের জাত পরিচিতি২০২১-০২-১৭T১৯:০৪:৫৯+০৬:০০
Go to Top