বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএসআই) কর্তৃক উদ্ভাবিত ইক্ষুর জাতসমূহের বিবরণঃ

জাতের নাম ছবিতে ক্লিক ছবিতে ক্লিক গড় ফলন (বিঘা প্রতি)
ঈশ্বরদী ১-৫৩ IMG_2932 IMG_1841 ২৬৪.৩৫ মণ
চারা সোজাসুজি গজায়, পাতা ও আখ চিকন, অপুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক জাত। বিদ্যমান চিনির পরিমাণ ১২.১১%। বৃহত্তর পাবনা, বগুড়া, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া, জামালপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী। লালপচা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন। বন্যা ও জলাবদ্ধতা সহিষ্ণু। মধ্যম ফলনশীল জাত।
ঈশ্বরদী ১-৫৪ IMG_2931 2-54 ২৮২.২১ মণ
চিনির পরিমাণঃ ১২.৯৭%, রেড রট ও বন্যা-জলাবদ্ধতা সহনশীল, লবনাক্ত ও অন্যান্য এলাকার জন্য প্রযোয্য, অপুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক জাত। বৃহত্তর পাবনা, বগুড়া, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া, জামালপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী।
লতারি
জবা-সি
IMG_2929 IMG_1846 ২৮২.২১ মণ
চিনির পরিমাণঃ ১৩.১৯%, রেড রট ও বন্যা-জলাবদ্ধতা সহনশীল, লবনাক্ত ও অন্যান্য এলাকার জন্য প্রযোয্য, অপুষ্পক, মধ্যম ফলনশীল জাত। বৃহত্তর দিনাজপুর, বগুড়া, রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী
ঈশ্বরদী ১৬ IMG_2927  16 ৩২৮.৬৫ মণ
আখের চোখ চতুষ্কোণ, পাতা চওড়া ও খোলে হুল আছে, ভিতরে একটু ফাঁপা, চিনির পরিমাণঃ ১৪.৪৮%, খুবই উন্নতমানের গুড়ের জন্য উপযোগী, আগাম জাত। বৃহত্তর দিনাজপুর, বগুড়া, রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী।  উচ্চফলনশীল ও আগাম পরিপক্ক জাত
ঈশ্বরদী ১৭ IMG_2925 IMG_1848 ৩০৩.৬৫ মণ
আখের চোখ ছোট, ডিম্বাকৃতির, পাতার খোলে হুল আছে। প্রথমে লালপচা রোগ প্রতিরোধী ছিল, পরবর্তীতে লালপচা রোগ বেশী হলে চাষাবাদ রহিত করা হয়। উন্নতমানের গুড় তৈরি হয় ও উচ্চ ফলনশীল জাত। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৪.৫৩%। বৃহত্তর দিনাজপুর, বগুড়া, রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী।
ঈশ্বরদী ১৮ IMG_2922 IMG_1850 ৩০৭.২২ মণ
প্রথমে লালপচা রোগ প্রতিরোধী ছিল, পরবর্তীতে লালপচা রোগ বেশী হলে চাষাবাদ রহিত করা হয়। উন্নতমানের গুড় তৈরি হয় ও উচ্চ ফলনশীল মুড়ি আখের উপযোগী জাত। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৩%। বৃহত্তর দিনাজপুর, বগুড়া, রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের জন্য চাষোপগী।
ঈশ্বরদী ১৯ IMG_2921 19 ২৯৬.৫০ মণ
আখের চোখ ছোট, ডিম্বাকৃতির, পাতার খোলের মাঝামাঝি জায়গায় হুল আছে। লালপচা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন। মধ্যম মানের গুড় হয়। উচ্চ ফলনশীল জাত। রাজশাহী, পাবনা, জামালপুর ও জয়পুরহাটের জন্য উপযোগী। চিনির ধারণক্ষমতা ১৩.৫৮%।
ঈশ্বরদী ২০ IMG_2918 20 ৩৩২.২৩ মণ
আখের চোখ বড়, ত্রিকোণাকৃতির, চর ও নীচু এলাকার জন্য উপযোগী, চিনির পরিমাণঃ ১৩.৪৮%, রেড রট, বন্যা সহনশীল, চমৎকার রেটুন ক্রপ, অপুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক। মুড়ি আখের জন্য অত্যন্ত ভাল। খরা, বন্যা ও জলাবদ্ধতা সহিষ্ণু।
ঈশ্বরদী ২১ IMG_2917  21 ২৫৩.৬৩ মণ
চোখ বড়, পাতার খোলের উপরের অংশে প্রচুর হুল আছে। বন্যা সহিষ্ণু। উন্নত মানের গুড় হয়। মধ্যম ফলনশীল ও আগাম পরিপক্ক জাত।
ঈশ্বরদী ২২ IMG_2915  22 ২৩২.২০ মণ
চোখ মধ্যম আকারের। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৫.২৭%। বৃহত্তর রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, কুষ্টিয়া ও জামালপুরের জন্য উপযোগী। লালপচা রোগ প্রতিরোধী। মধ্যম ফলনশীল ও উন্নতমানের গুড় হয়।
ঈশ্বরদী ২৪ IMG_2913 24 ১৭৫.০৪ মণ
চোখ মধ্যম আকারের, পুষ্পক তবে মাঝে মাঝে ফুল দেখা যায়, আগাম জাত। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৪.১৫ %। লালপচা রোগ প্রতিরোধী। চিবিয়ে খাওয়ার উপযোগী। মধ্যম ফলনশীল ও আগাম পরিপক্ক জাত। বৃহত্তর রাজশাহী, পাবনা, বগুড়ার জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ২৫ IMG_2910  25 ২২১.৪৮ মণ
চোখ মধ্যম আকারের, পুষ্পক তবে মাঝে মাঝে ফুল দেখা যায়। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৩.২০ %। লালপচা রোগ প্রতিরোধী। চিবিয়ে খাওয়ার উপযোগী। মধ্যম ফলনশীল ও মধ্যম পরিপক্ক জাত।  বৃহত্তর রাজশাহী, পাবনা, জয়পুরহাট, দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ২৬ IMG_2909 26 ২১৪.৩৪ মণ
চোখ মধ্যম আকারের, অপুষ্পক মধ্যম পরিপক্ক জাত। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৪.৭৪ %। লালপচা রোগ প্রতিরোধী। চিবিয়ে খাওয়ার উপযোগী। মধ্যম ফলনশীল ও মধ্যম পরিপক্ক জাত।  বৃহত্তর রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ২৭ IMG_2906  27 ২৫০.০৬ মণ
চোখ মধ্যম আকারের, পুষ্পক, আগাম পরিপক্ক জাত। উন্নতমানের গুড় হয়।চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৪.৭৪ %। লালপচা রোগ প্রতিরোধী। চিবিয়ে খাওয়ার উপযোগী। মধ্যম ফলনশীল ও মধ্যম পরিপক্ক জাত।  বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, বগুড়া, ময়মনসিংহ ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ২৮ IMG_2905  28 ২৭৮.৬৪ মণ
চোখ মধ্যম আকারের, পুষ্পক, আগাম পরিপক্ক জাত, লালপচা রোগের প্রতি সংবেদনশীলতা থাকায় চাষাবাদ রহিত করা হয়। উন্নতমানের গুড় তৈরি হয়। উচ্চ ফলনশীল ও লবনাক্ত এলাকার জন্য উপযুক্ত। চিনির ধারণ ক্ষমতা ১৪.৩১%। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, বগুড়া, ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ২৯ IMG_2902  29 ৩২১.৫১ মণ
চোখ ছোট, কান্ড শক্ত, ফাঁপা নেই, দ্রুত বর্ধনশীল, পুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক। লালপচা রোগের প্রতি সংবেদনশীলতা মধ্যম প্রকৃতির। উন্নতমানের গুড় হয়। উচ্চফলনশীল ও বন্যা সহিষ্ণু।চিনির ধারণক্ষমতা ১৪.২৯%। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, পাবনা, বগুড়া, সিলেট, বরিশালের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩০ IMG_2901  30 ২৭৮.৬৪ মণ
গুড়ের গুনগত মান ভাল, পুষ্পক, আগাম, বন্যা সহনশীল। লালপচা রোগের প্রতি সংবেদনশীল। উন্নতমানের গুড় হয়। উচ্চফলনশীল ও বন্যা সহিষ্ণু।চিনির ধারণক্ষমতা ১৪.৫৯%।বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, বগুড়া, জয়পুরহাট ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩১ IMG_2899 31 ৩২১.৫১ মণ
চোখ মাঝারি, কান্ড শক্ত, ফাঁপা নেই, খোলে হুল আছে, পুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক। লালপচা রোগের প্রতি সংবেদনশীল। উন্নতমানের গুড় হয়। উচ্চফলনশীল ও বন্যা সহিষ্ণু।চিনির ধারণক্ষমতা ১২.৯৪%।বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, সিলেট, বরিশালর জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩২ IMG_2896 32 ৩৭১.৫২ মণ
পাতা শুকিয়ে গেলে ঝরে পড়ে না, পুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক, চিনির পরিমাণঃ ১২.৬০%, বন্যা ও খরা সহনশীল। লালপচা রোগের প্রতি মধ্যম সহনশীল। উন্নতমানের গুড় হয়। উচ্চফলনশীল ও চরাঞ্চলের জন্য ভাল।
ঈশ্বরদী ৩৩ IMG_2894  33 ৩২৫.০৮ মণ
কান্ড শক্ত, ভিতরে সরু পাইপ দেখা যায়, চিনির পরিমাণঃ ১৪.৫৫%, বন্যা ও খরা সহনশীল। লালপচা প্রতিরোধ ক্ষমতা মধ্যম প্রকৃতির। মুড়ি আখের জন্য ভাল। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাঁও, জয়পুরহাটের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩৪ IMG_2892 34 ৩৩২.২৩ মণ
অপুষ্পক, মধ্যম পরিপক্ক, চিনির পরিমাণঃ ১২.৮৩%, বন্যা, জলাবদ্ধতা ও খরা সহনশীল, গুড় ও রেটুন ক্রপের উপযোগী। উন্নতমানের গুড়। মুড়ি ফসলের জন্য ভাল। কদাচিৎ ফুল হয়। মধ্যম পরিপক্ক জাত।
ঈশ্বরদী ৩৫ IMG_2890 35 ৩১৩.৩৩
কান্ড মাঝারি শক্ত, ফাঁপা নেই, পুষ্পক, আগাম,  চিনির পরিমাণঃ ১৪.৬০%, বন্যা ও খরা সহনশীল, গুড় ও চর এলাকার উপযোগী। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাওয়ের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩৬ IMG_2889  36 ৩১৭.৯৪ মণ
অপুষ্পক, আগাম। লালপচা রোগ মধ্যম প্রতিরোধী। উন্নতমানের গুড় হয়। উচ্চ ফলনশীল ও বন্যা-খরা সহনশীল। চরাঞ্চলের জন্য উপযুক্ত। চিনির ধারণক্ষমতা ১৪.৬০%।
ঈশ্বরদী ৩৭ IMG_2887  37  ৩৬০.৮০ মণ
কান্ড শক্ত, ভেতরে ফাঁপা, অপুষ্পক, আগাম। চিনির ধারণক্ষমতা ১৪.৪২%। লালপচা মধ্যম প্রকৃতির। উন্নতমানের গুড় হয়। বন্যা, খরা, জলাবদ্ধতা সহনশীল। চরাঞ্চলের জন্য ভাল। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাও ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩৮ IMG_2884 38 ৪০৩.৬৭ মণ
কান্ড শক্ত, ভেতরে ফাঁপা নেই, পুষ্পক, আগাম জাত, লালপচা মধ্যম প্রকৃতির। উন্নতমানের গুড় হয়। বন্যা, খরা, জলাবদ্ধতা সহনশীল। চরাঞ্চলের জন্য ভাল। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাও ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৩৯ IMG_2882 39 ৩৬০.৮০ মণ
চোখ, মাঝারি, পুষ্পক। লালপচা মধ্যম প্রকৃতির। উন্নতমানের গুড় হয়। বন্যা, খরা, জলাবদ্ধতা সহনশীল। চরাঞ্চলের জন্য ভাল। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাও ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
ঈশ্বরদী ৪০ IMG_2880 40 ৩৬৭.৯৫ মণ
চোখ, মাঝারি, মাঝে মাঝে ফুল আসে, চিনির পরিমাণঃ ১৪.৮৬%, রেড রট, বন্যা, খরা, জলাবদ্ধতা সহনশীল, চরের জন্য উপযোগী। লালপচা মধ্যম প্রকৃতির। উন্নতমানের গুড় হয়। বন্যা, খরা, জলাবদ্ধতা সহনশীল। চরাঞ্চলের জন্য ভাল। বৃহত্তর রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রংপুর, পাবনা, গাজীপুর, ঠাকুরগাও ও দিনাজপুরের জন্য উপযোগী।
বিএসআরআই আখ ৪১
(অমৃত)
IMG_2878 Isd 41 ৪৬৫.১৭
চিবিয়ে খাওয়া ও রস পান উপযোগী, উচ্চ ফলনশীল, মাঝারী পরপিক্ক, উন্নতমানরে গুড় উৎপাদন উপযোগী, লালপচা রোগ সহ্যক্ষম, খরা সহষ্ণিু। চিনির পরিমাণ ১২.১২।
বিএসআরআই আখ ৪২
(রংবিলাস)
IMG_2877 Isd 42 ৫৬৫.২৩
চিবিয়ে খাওয়া ও রস পান উপযোগী, উচ্চ ফলনশীল, আগাম পরপিক্ক, উন্নতমানরে গুড় উৎপাদন উপযোগী, খরা সহষ্ণিু। চিনির পরিমাণ ১১.১১।
ঈশ্বরদী ৪৩ IMG_2875 Isd 43 ৩৯৫.৭৩
মুড়ি আখের জন্য ভাল, উচ্চ ফলনশীল, আগাম পরপিক্ক, উন্নতমানরে গুড় উৎপাদন উপযোগী, লালপচা রোগ প্রতিরোধী। বন্যা, খরা ও জলাবদ্ধতা সহনশীল। চিনির পরিমাণ ১৩.৭২।
ঈশ্বরদী ৪৪ IMG_2873 Isd 44 ৩৫৬.৩৭
কম আশ সম্পন্ন জাত। উচ্চ ফলনশীল, আগাম পরপিক্ক, উন্নতমানরে গুড় উৎপাদন উপযোগী, লালপচা রোগ প্রতিরোধী। বন্যা, খরা ও জলাবদ্ধতা সহনশীল। চিনির পরিমাণ ১৩.৩৫।
গুড় উপযোগী জাত আগাম পরিপক্ক জাত মধ্যম পরিপক্ক জাত বন্যা, খরা ও লবনাক্ততা সহিষ্ণু জাত মুড়ি আখের জন্য উপযুক্ত জাত চিবিয়ে খওয়া জাত
ঈ-১৬, ঈ-২১, ঈ-২২, ঈ-২৪, ঈ-২৫, ঈ-২৯, ঈ-৩০ ও ঈ-৩১ ঈ-১৬, ঈ-২২, ঈ-২৪, ঈ-২৬, ঈ-২৭, ঈ-৩৩, ঈ-৩৫, ঈ-৩৬, ঈ-৩৭, ও ঈ-৩৮ ঈ-১৮, ঈ-১৯, ঈ-২০, ঈ-২৮, ঈ-২৯, ঈ-৩১, ঈ-৩২, ও ঈ-৩৪ লতারিজবা ‘সি’, ঈ-২০, ঈ-২১, ঈ-২২, ঈ-২৪, ঈ-২৫, ঈ-২৬, ঈ-২৭, ঈ-২৯, ঈ-৩০ও ঈ-৩১ ঈ-২/৫৪, ঈ-২০, ঈ-২১, ঈ-২৭, ঈ-২৮, ঈ-২৯, ঈ-৩০, ঈ-৩১, ঈ-৩২, ঈ-৩৩ ও ঈ-৩৪ সিও-২০৮, অমৃত, বারঙ, গে-ারী, কাজলা, মিশ্রিমালা, তুরাগ


তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএসআরআই), ঈশ্বরদী, পাবনা 

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১