রোগের লক্ষণঃ
[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/12/banana-bunchytop-1.jpg[/slide]
[/slider]
এ রোগের কারণে কলা গাছের বৃদ্ধি হ্রাস পায় এবং পাতা গুচ্ছাকারে বের হয়। পাতা আকরে খাটো, অপ্রস্থ এবং উপরের দিকে খাড়া থাকে। কচি পাতার কিনারা উপরের দিকে বাকানো এবং হলুদ রংয়ের হয়। পাতার শিরার মধ্যে ঘন সবুজ দাগ পড়ে।

রোগের সমন্বিত ব্যবস্থাপনাঃ

রোগ দেখা দেয়ার পূর্বে করণীয়ঃ 

১. সুস্থ সবল চারা রোপন করা।
২. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন জাত ব্যবহার করা;

৩. আক্রান্ত বাগান থেকে চারা সংগ্রহ করবেন না
৪. আকান্ত জমিতে কলা চাষ করবেন না;

রোগ দেখা দেয়ার পর করণীয়ঃ

১. আকান্ত গাছ দেখামাত্র গোড়াসহ তুলে পুড়ে বা পুতে ফেলা।
২. ভাইরাসের বাহক পোকা (জাবপোকাও থ্রিপস) দমনের জন্য অনুমোদিত বালাইনাশক (এসাটাফ, টিডো, এডমায়ার) প্রতি লিটার পানিতে ২ মি.লি হারে মিশিয়ে ব্যবহার করা।

তথ্যসূত্রঃ কৃষকের জানালা

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১