পরিবেশঃ প্রচুর রোদ লাগে এমন যে কোন সমতল জমি প্রয়োজন।

মাটিঃ যে কোন মাটিতেই জন্মায়। বেলে-দোআঁশ মাটিতে ফলন ভালো হয়।

বপন সময়ঃ অগ্রহায়নের শেষ থেকেই লাগানো যায়। বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলে পৌষের প্রথমে লাগানো ভালো।

জমি তৈরিঃ ভাল করে কুপিয়ে বা লাঙ্গল দিয়ে মাটি মিহি করতে হবে। নিড়ানি দিয়ে ঘাস ও আগাছা পরিষ্কার করতে হবে। অল্প পরিমাণ অর্থাৎ ১০ শতাংশ বা তার কম জমিতে চাষ করলে ৫ সেমি বা দুই ইঞ্চি উঁচু বেড তৈরি করা ভালো। খেয়াল রাখতে হবে যাতে ৬ ইঞ্চ (১৫ সেমি) মাটি আলগা থাকে। অগ্রহায়নের মাঝামাঝি সময়ে মাটিতে জো আসলে জমি তৈরি করা আরম্ভ করা যেতে পারে। সার মেশানোর এক সপ্তাহ পরে প্রয়োজন হলে একবার নিড়ানি দিয়ে বেড তৈরি শেষ করতে হবে।

বপনঃ এক ফুট বা ৩০ সেমি. দূরে দূরে ১-৪ ইঞ্চি গর্ত করে প্রতি গর্তে ২-৩ টি করে বীজ পুততে হবে। খেয়াল রাখতে হবে বীজ বেশী গভীরে যেন না যায়।

অংকুরোদম সময়কালঃ ১২-১৬ দিন অর্থাৎ ০-২ সপ্তাহের মধ্যে গজাবে।

বীজের পরিমাণঃ ১০ শতাংশ জমিতে ৩৫০-৪০০ গ্রাম বীজ প্রয়োজন।

বীজ শোধনঃ আলাদা করে শোধনের দরকার নেই। তবে বোনার আগে ভালো করে ধুয়ে ধূলাাবালি ্ চিটা বীজ সরিয়ে নেওয়া ভালো। ভেজা বীজ বপন করা উচিত।

তথ্যসূত্রঃ চলিত বাজারদর, সেপ্টেম্বর, ২০০৭ 

 

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১