বপন সময়ঃ 

ভাদ্র-আশ্বিন (মধ্য-আগস্ট থেকে মধ্য অক্টোবর) মাসে বীজ বপন করতে হয় এবং কার্তিক থেকে অগ্রহায়ন পর্যন্ত (মধ্য নভেম্বর থেকে ডিসেম্বর) জমিতে চারা রোপণ করা যায়।

বীজ হার ও চারা উৎপাদনঃ

চারা তৈরীর জন্য ৩.৩০ x ১০ ফুট বীজতলা তৈরি করতে হবে। প্রতি বিঘা জমিতে ফুলকপি চাষের জন্য ৪০-৪৫ গ্রাম বীজ প্রয়োজন। ফুলকপি চাষের জন্য ৩০ দিন বয়সের চারা লাগাতে হয়। সারি থেকে সারির দূরত্ব ২ ফুট এবং সারিতে গাছ থেকে গাছের দূরত্ব ১.৫ ফুট হবে।

১। আমাদের দেশে সাধারনত ফুলকপির বীজ সরাসরি একেবারেই বীজতলায় বপন করা হয়। চারাগুলো দ্বিতীয় বীজতলায় স্থানান্তর করা হয় না। এতে বীজের পরিমান বেশি লাগে। উপরন্ত চারার স্বাস্থ্য ভাল হয় না।  অথচ ভাল ফসল পেতে হলে সুস্থ্য সবল চারা লাগাতে হবে। তাই প্রথম বীজতলায় ঘন করে বীজ ফেলতে হবে। বীজ গজানোর ১০-১২ দিন পর গজানো চারা দ্বিতীয় বীজতলায় স্থানান্তর করতে হয়।

২। দ্বিতীয় বীজতলায় চারা স্থানান্তরের ৭/৮ দিন পূর্বে প্রতিটি ৩.৩০ x ১০ ফুট বীজতলায় ১৫০ গ্রাম টিএসপি, ১০০ গ্রাম ইউরিয়া ও ১০০ গ্রাম এমপি সার মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে হবে। পরবর্তীতে চারা বৃদ্ধির হার কম হলে প্রতিটি বীজতলায় ৮০-১০০ গ্রাম ইউরিয়া ছিটিয়ে দিতে হবে।

তথ্যসূত্রঃ কৃষি প্রযুক্তি হাত বই (৬ষ্ঠ সংস্করণ), বারি, গাজীপুর

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১