কেগরনাটকীই অনেকদিন পর্যন্ত বরবটি একটি উন্নত জাত হিসেবে চাষ হয়ে আসছে। এখন অবশ্য বেশ কয়েকটি জাত চলে এসেছে। লাল বেণী, তকি, ১০৭০, বনলতা, ঘৃতসুন্দরী, গ্রীন লং, গ্রীন ফলস এফ১, সামুরাই এফ১ ইত্যাদি কয়েকটি উল্লেখযোগ্য কয়েকটি  জাত। কেগরনাটকী জাতটি পৌষ-মাঘ মাস ছাড়া সারা বছরই চাষ করা যায়। মধ্য মাঘ থেকে মধ্য আশ্বিনে চাষ করা যায় ঘৃতসুন্দরী, গ্রীন লং। মধ্য ফাল্গুন থেকে মধ্য আশ্বিন পর্যন্ত চাষ করা যায় ১০৭০ জাতটি। উল্লেখিত জাতগুলোর রমধ্যে কেগরনাটকী ও লাল বেণী জাতের ফলন সবচেয়ে বেশি। তবে খেতে ভাল ঘৃতসুন্দরী।

জাতের নাম ও ছবি জীবনকাল
(দিন)
বিঘা প্রতি ফলন অন্যান্য বৈশিষ্ট্যাবলী
bari 1
বারি  বরবটি-১
২০০-২২০
(ফাল্গুন-আশ্বিন মাসে এ জাতের বীজ বপন করতে হয়। বপনের ৬০-৭০ দিন পর বরবটি সংগ্রহ করা যায়।)
৫০-৭০ মণ(প্রতি গাছের ওজন ৩৫০-৪০০ গ্রাম)

এ জাতের গাছ গাঢ় সবুজ রংয়ের এবং লম্বায় ১.৫ ফুট হয়। প্রতিটি গাছে ৬০-৭০ টি বরবটি ধরে এবং পাকার পূর্বক্ষণ পর্যন্ত নরম থাকে, খেতে সুস্বাদু। দেশের সব অঞ্চলে চাষ করা যায়। জাতটি পাউডারী এবং ডানি মিলডিউ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন। অন্যান্য রোগ বালাইয়ের আক্রমণ কম হয।


তথ্য সূত্রঃ কৃষি প্রযুক্তি হাত বই, বারি, গাজীপুর এবং কৃষি তথ্য সার্ভিস

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১