মিষ্টিকুমড়ার ভাল ফলন পাওয়ার জন্য প্রতি শতাংশ (ডেসিমাল) মাঝারি উর্বর জমির জন্য নিম্নোক্ত হারে সার প্রয়োগ করতে হবেঃ

সারের নাম মন্তব্য
পচা গোবর/কম্পোস্ট ৯০ কেজি অধিকতর তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন। এলাকা ও মৃত্তিকা ভেদে সারের পরিমাণে কম-বেশি হতে পারে।
ইউরিয়া ০.৭০ কেজি 
টিএসপি  ০.৭০ কেজি 
এমওপি/পটাশ ০.৬১ কেজি 
জিপসাম ০.৩৯ কেজি 
দস্তা ০.০৫ কেজি
বোরণ ০.০৪ কেজি 
ম্যাগনেসিয়াম অক্সাইড ০.০৫ কেজি 

 

সার প্রয়োগ পদ্ধতিঃ

গোবরের ৩৩ কেজি, ৪২০ গ্রাম টিএসপি ও ২১০ গ্রাম পটাশ, সমুদয় জিপসাম, দস্তা, বোরণ জমি তৈরির সময় মাটিতে প্রয়োগ করতে হবে। অবশিষ্ট গোবর (মাদা প্রতি ১০ কেজি), টিএসপি (মাদা প্রতি ৫০ গ্রাম), ২৫০ গ্রাম পটাশ (মাদা প্রতি ৩৫ গ্রাম), সমুদয় ম্যাগনেসিয়াম (মাদা প্রতি ৮-১০ গ্রাম) চারা রোপণের ৭-১০ দিন পূর্বে প্রয়োগ করতে হবেচারা রোপণের ৮-১০ দিন পর ১ম বার ২০০ গ্রাম ইউরিয়াএবং অবশিষ্ট পটাশ সার (মাদা প্রতি ৩০ গ্রাম), ৩০-৩৫ দিন পর ২য় বার, ৫০-৫৫ দিন পর ৩য় বার ২০০ গ্রাম করে ইউরিয়া (মাদা প্রতি ৩৩ গ্রাম) প্রয়োগ করতে হবে। চারা রোপণের ৭০-৭৫ দিন পর ১০০ গ্রাম ইউরিয়া (মাদা প্রতি ১৯ গ্রাম) প্রয়োগ করতে হবে

চারা রোপণের পূর্বে সার দেয়ার পর পানি দিয়ে মাদার মাটি ভালভাবে ভিজিয়ে দিতে হবে। অতঃপর মাটিতে জো এলে ৭-১০ দিন পর চারা রোপণ করতে হবে।

তথ্য সূত্রঃ কৃষি প্রযুক্তি হাত বই এবং কৃষি প্রযুক্তি ভান্ডার, বারি, গাজীপুর

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১