[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2016/03/Indigo-caterpilalr.jpg[/slide]
[/slider]

পোকা ও ক্ষতির প্রকৃতিঃ

কাতরী পোকা/Indigo Caterpillar (Spodoptera exigua) পাটের একটি ক্ষতিকর পোকা। পূর্ণবয়স্ক পোকা একটি ছোট মথ। সামনের ডানার উপরে কালো ফোটা আছে। কিন্তু পিছনের ডানা সাদা। শূককীট প্রথম দশায় সবুজ থাকে। এ সময় এদের মাথা কালো থাকে। প্রথম অবস্থায় এই মথের কীড়ার রঙ সবুজ এবং মাথা কালো হয়। পূর্ণবয়স্ক কীড়ার রং সবুজ অথবা গোলাপি বাদামী। এদের গায়ে শুঙ্গ থাকে না, লম্বায় এরা ১ইঞ্চি বা ২.৫ সেমি। কীড়ার মোট জীবনকাল ১৪-১৬ দিন। পিউপেশন সময়কাল ৬-৭ দিন। পূর্ণাঙ্গ মথের ৭ দিন বাচেঁ। অল্প বয়স্ক কীড়া কুঁড়ি পাতার ভেতর লুকিয়ে থাকে বলেসহজেই চোখে পড়ে না। আক্রান্ত চারা গাছের কচি পাতার উপর পোকার মলের ছোট ছোট কালো রঙের বড়ি এবং ডগার ঝাঁজরা কচি পাতা দেখে এদের আক্রমণ সহজেই চেনা যায়। পূর্ণবয়স্ক কীড়া গাছের মাথার সব পাতাই খেয়ে ফেলে এবং গাছের ডগা পাতাশুন্য করে ফেলে। এতে গাছ দুর্বল হয়ে পড়ে ও গাছের উচ্চতা কমে যায়। ফলে ফলন কমে যায়। এ পোকার আক্রমণে একরে ১.৫ হতে ২ মন পর্যন্ত পাটের ফলন কম হয়। এ পোকা পাটের গৌণ হিসেবে চিহ্নিত। মে থেকে জুন মাসে এদের আক্রমণ দেখা যায়। খরার সময় এদের আক্রমণ বৃদ্ধি পায়।

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

–  বিকল্প পোষক যেমন ধইঞ্চা, মিষ্টি আলু, টমেটো, গোল মরিচ, সরগম, বাধাকপি, লেটুস, পেয়াজ ও গাজর থেকে রোটেশন করতে হবে।

– ট্র্যাপ ক্রপ হিসেবে তিলের চাষ করা যায়;

– প্রথমদিকে হেভি সেচ দিয়ে নিয়ন্ত্রনে রাখা যায়

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

– আক্রান্ত পাতা/গাছ তুলে নষ্ট করে ফেলতে হবে।

আক্রমণের মাত্রা বেশী হলে-

** ডায়াজিনন অথবা কুইনালফস অথবা কার্বারিল গ্রুপের কীটনাশক অনুমোদিত মাত্রায় পানির সাথে মিশিয়ে স্প্রে করা।

তথ্যসূত্রঃ ১। পাট, কেনাফ ও মেস্তা ফসলের পোকা-মাকড়, মাইট ও ব্যবস্থাপনা, বিজেআরআই, ঢাকা ও কৃষি তথ্য ভান্ডার

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১