[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/mealybug-3.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/jutemilibug-2.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/Mealybug-2.jpg[/slide]
[/slider]

পোকা ও ক্ষতির প্রকৃতিঃ

এ পোকা দেখতে লম্বাটে গোল এবং হালকা গোলাপী রংঙের, পোকাগুলো একসাথে থাকে ও এদের উপরিভাগ সাদা তুলার মতো গুড়া দ্বারা আবৃত থাকে।ডিম থেকে ৪-১১ দিনে বাচ্ছা বের হয় এবং নরম অংশে অবস্থান করে। নিম্ফ অবস্থা ১৮ থেকে ৩১ দিন পর্যন্ত বিরাজ করে। এরা গাছের ডগায় দল বেঁধে বাস করে এবং নিম্ফ ও পূর্ণাঙ্গ পোকা কচি ডগা ও পাতার রস চুষে খায়। ফলে কচি ডগা ও পাতাগুলো কুঁকড়ে যায় এবং আক্রান্ত স্থান ফুলে উঠে। কোঁকড়ানো পাতাগুলো ঝড়ে যায় ও আক্রান্ত স্থান হতে শাখা-প্রশাখা বের হয়। এতে গাছ লম্বায় বাড়ে না ও আক্রান্ত স্থান ভাল করে পঁচে না। পোকার আক্রমণের দরুন ফলন খুবই কম হয় এবং আঁশ নিম্নমানের হয়। বীজ ফসলে আক্রমণ হলে বীজের ফলন খুব কম হয়।

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

১. নিয়মিত মাঠ পরিদর্শন করে আক্রমণের শুরুতেই ব্যবস্থা নিতে হবে।

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

  • আক্রান্ত ডগা, পাতা ও ডাল দেখা মাত্রা তা সংগ্রহ করে ধ্বংস করা ।
  • আক্রমণ বেশি হলে প্রতি লিটার পানিতে ম্যালাথিয়ন বা সুমিথিয়ন ২ মিঃলি/মারসাল ২০ ইসি ১মিঃলিঃ/ডায়ামেথয়েট ৪০ ইসি ২মিঃলিঃ/সিমবুশ ১০ ইসি ০.৫ মিলি মিশিয়ে স্প্রে করা ।

তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ পাট গবেষণা্ ইনস্টিটিউট (বিজেআরআই), ঢাকা এবং Farmer’s window

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১