[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2016/03/Jute-yellow-mite-2.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2016/03/Jute-yellow-mite.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2016/03/Jute-yellow-mite-3.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2016/03/Jute-yellow-mite-on-flower.jpg[/slide]
[/slider]

পোকা ও ক্ষতির প্রকৃতিঃ

হলুদ বা সাদা মাকড় (Jute Yellow Mite) পাটের একটি ক্ষতিকর পোকা।বৈশাখের প্রথম হতে আশ্বিনের মাঝামাঝি পর্যন্ত এরা পাট গাছের ক্ষতি করে। পাটের আঁশ ও বীজ উভয় ফসলেরই এরা ক্ষতি করে। পূর্ণাঙ্গ মাকড় খুবই ক্ষুদ্র এবং খালি চোখে দেখা যায় না। কিন্তু আক্রান্ত কচি পাতার উল্টো দিকে ভালমত পরীক্ষা করলে এদেরকে সাদা গুড়োর মত দেখা যায়।

– সাদা মাকড় পাট গাছের আগার কচি পাতা আক্রমণ করে পাতার রস চুষে খায়। এতে কচি পাতা কুকড়ে যায় এবং তামাটে রং ধারণ করে। আক্রমণের প্রকোপ বাড়লে পাতা ঝড়ে পড়ে ও গাছের ডগা নষ্ট হয়ে যায়, ফলে গাছ লম্বায় বাড়ে না ও পরে শাখা প্রশাখা বের হয়। এতে আঁশের ফলন কমে যায় এবং মানেরও অবনতি ঘটে।

– সাদা মাকড় ফুলের কুঁড়িকেও আক্রমণ করে। আক্রান্ত কুঁড়ি ঠিকমতো ফুটতে পারে না। ফুলের পাপড়ির রং হলদে থেকে কালচে রং এর হয়ে যায় এবং পরে ঝরে পড়ে। এতে বীজের ফলন কমে যায়। একটানা খরা/অনাবৃষ্টির সময় সাদা মাকড়ের আক্রমণ বেড়ে যায়।

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

–  বিকল্প পোষক দমন করতে হবে।

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

– আক্রান্ত পাতা/গাছ তুলে নষ্ট করে ফেলতে হবে।

– আধা কেজি নিম পাতা ১০ কেজি গরম পানিতে ৫ থেকে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে নিম পাতার নির্যাস ছেকে ঠাণ্ডা করতে হবে। এ নির্যাস উপরোক্ত নিয়মে (ডগার ১০ম পাতা পর্যন্ত) পাট গাছে ছিটিয়ে হলুদ মাকড় দমন করা যায়। প্রথম বার সেপ্র করার দ্বিতীয় দিন একইভাবে ওষুধ আবার ছিটালে ভাল ফল পাওয়া যায়।

– আক্রমণের মাত্রা বেশী হলে- 

** হলুদ বা সাদা মাকড়ের আক্রমন দেখা দিলে থিয়োভিট ৮০% পাউডার একর প্রতি দেড় কেজি এবং সালফেক্স, কোজাভেট ওয়েটাসুল, সালফোলাক, সালফার, রনোভিট বা কুমুলাস ৮০% পাউডার একর প্রতি ১ কেজি বা নিরোট একর প্রতি ৫০০ মিলি পানিতে মিশিয়ে সেপ্র মেশিনের সাহায্যে এমনভাবে ছিটাতে হবে যেন ডগার উপরের কচি পাতাগুলো (১০ম পাতা পর্যন্ত) ভালভাবে ভিজে যায়।

তথ্যসূত্রঃ ১। পাট, কেনাফ ও মেস্তা ফসলের পোকা-মাকড়, মাইট ও ব্যবস্থাপনা, বিজেআরআই, ঢাকা;

            ২। krishiblog.com এবং blog.bdnews24.com।

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১