পোকার বৈশিষ্ট্য:

মসুরের জাব পোকা সাধারণত কালো রংয়ের হয়ে থাকে৷এ পোকার দেহ নরম৷ ডিম্বাকৃতির এ পোকার দেহ লম্বায় ১.৫ থেকে ২ মিলিমিটার৷ এগুলোর দেহ থেকে মিষ্টি রস নিঃসরণ হয় বলে জাবপোকা আক্রান্ত গাছে পিঁপড়ার উপস্থিতি দেখা যায়৷এ পোকার জীবনকাল ৮-১০ দিন৷ ডানাযুক্ত পোকা এক গাছ থেকে অন্য গাছে উড়ে গিয়ে বংশবিস্তার করতে পারে৷ ফলে অতি অল্প সময়ে এগুলো বিরাট এলাকায় মসুরের অপূরণীয় ক্ষতি করতে পারে৷জাবপোকা অগ্রহায়ণ মাসের মাঝামাঝি থেকে ফাল্গুন মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত বেশি দেখা যায়৷ গ্রীষ্মকালে এগুলো শিম, বাদাম, মটরশুঁটি ও ক্রসিফেরাস জাতীয় গাছের উপর বেঁচে থাকে৷

ক্ষতির প্রকৃতি: 

  • পূর্ণবয়স্ক পোকা ও নিস্ফ উভয়ই মসুরের পাতা, কাণ্ড, পুষ্পমঞ্জরি ও বাড়ন্ত শুঁটি থেকে রস শুষে খায়৷ অতিমাত্রায় আক্রমণের কারণে গাছের পাতা কুঁকড়ে যায় এবং গাছের বৃদ্ধি কমে যায়৷
  • আক্রান্ত পুষ্প থেকে সাধারণত গুঁটি বের হয় না৷
  • জাবপোকার আক্রমণের ফলে মসুরের ফলন উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যায়৷

পোকার আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ

  • মসুরের জমি এবং চারপাশের পোষক/আগাছা দমন;
  • প্রাকৃতিক শত্রুর আধিক্য বাড়ানো ও সংরক্ষণ যেমন : লেডিবার্ডবিটল লালন;

পোকার আক্রমণের পর করণীয়ঃ

  • ডানাযুক্ত জাবপোকা হলুদ প্যান ফাঁদ ব্যবহার করে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব;
  • পানির সাথে সাবানের গুঁড়া মিশিয়ে হলুদ প্যানে রেখে ফাঁদ তৈরি করে তা আক্রান্ত মাঠে রেখে দিলে ডানাযুক্ত পোকাগুলো চলাফেরার সময় উক্ত ফাঁদে ধরা পড়ে৷
  • মেলাথিয়ন, রগর, রক্সিয়ন, পারফেকথিয়ন অথবা মেটাসিস্টক্স নামক কীটনাশকগুলোর যেকোনো একটি প্রতি লিটার পানিতে ১ মিলিলিটার ওষুধ মিশিয়ে স্প্রে করে জাবপোকা দমন করা যায়৷ 
  • ৫০ গ্রাম আধা ভাংগা নিমবীজ ১ লিঃ পানিতে ১২ ঘন্টা ভিজিয়ে সাথে ২-৩ গ্রাম ডিটারজেন্ট সাবান মিশিয়ে ৭ দিন অন্তর ২ বার ছিটাতে হবে।
  • শতকরা ২০-৩০ ভাগ গাছে জাবপোকা দেখা গেলে গেলে সঠিক কীটনাশক, সঠিক পদ্ধতিতে সঠিক সময়ে ও সঠিক মাত্রায় কীটনাশক প্রয়োগ করতে হবে, যেমনঃ
কীটনাশকের গ্রুপের নাম

বানিজ্যিক কীটনাশকের কতিপয় নমূনা ও অনুমোদিত মাত্রা

থায়োমেথোক্সাম একতারা ২৫ wg @ ২.০ মিলি/১০লিটার হারে পানিতে মিশিয়ে গাছে ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে;  অথবা
ইমিডাক্লোরোপিড এডমায়ার ২০০ এসএল, অথবা জাদীদ ২০০ এসএল @ ০.৫ মিলি/লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে;  অথবা
ম্যালাথিয়ন ফাইফানন ৫৭ ইসি; অথবা সাইফানন ৫৭ ইসি @ ২.২৪ মিলি/লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছে ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে;  অথবা
ডাইমেথয়েট  টাফগর ৪০ ইসি; অথবা রগর ৪০ ইসি @ ২ মিলি./লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছে ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে

নোটঃ একতারা, এডমেয়ার, জাদীদ ভাল কাজ করে বলে কৃষকগণ হতে জানা যায়।

তথ্যসূত্রঃ http://www.jeeon.com.bd

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১