পোকা আক্রমণের লক্ষণঃ

[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/sugarcane_beetle_symptoms_3.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/sugarcane_beetle_symptoms_1.jpg[/slide]
[/slider]

এ পোকা চারা গাছের মাটির নিচে গাছের অংশ বিশেষ বা শিকড় কেটে দেয় । পাতায় সারের ঘাটতি জনিত লক্ষণের ন্যায় পাতার পার্শ্বে হলুদ লম্বা দাগ দেখা যায় ।

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

১. উত্তমরুপে জমি চাষ দিয়ে পোকা পাখিদের খাবার সুযোগ করে দিন।
২. চারা গজানোর পর প্রতিদিন সকালে ক্ষেত পরিদর্শন করুন;
৩. পূর্বে আখ চাষ করা হয়েছে এমন জমিতে ভুট্রা চাষ করা যাবে না;

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

১। সারিতে গাছের গোড়ায় মাটি তোলার সময় পোকা বের হলে মেরে ফেলা; 
২। কেরোসিন মিশ্রিত পানি সেচ দেয়া;
৩। পাখি বসার জন্য ক্ষেতে ডালপালা পুতে দেয়া;
৪। রাতে ক্ষেতে মাঝে মাঝে আবর্জনা জড়ো করে রাখলে তার নিচে কীড়া এসে জমা হবে, সকালে সেগুলোকে মেরে ফেলা;
৫। এ পোকার জন্য কোন অনুমোদিত কীটনাশক নেই। তবে কলার বিটলের জন্য অনুমোদিত কীটনাশক হলো ঃ

গ্রুপের নাম বানিজ্যিক নাম ফসল
প্রফেনফস (৪০%) + সাইপারমেথ্রিন (২.৫%) সবিক্রণ ৪২৫ ইসি (এপি-৩২২) প্রতি লিটার পানিতে ২ মিলি হারে কলা
থিয়ামিথোক্সাম একতারা ২৫ wg (এপি-৪২৮) প্রতি লিটার পানিতে ০.২ গ্রাম হারে কলা
আইসোপ্রোকার্ব (এমআইপিসি) মিপসিন ৭৫ ডব্লিউ পি (এপি-৫৩৯) প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে কলা


তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি), গাজীপুর, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ঢাকা এবং Farmers’ window

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ১৩, ২০১৬