পোকার আক্রমণের লক্ষণ:

[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/10/Chungi-poka.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/10/Rice-case-worm-Surlitil-Ali-.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/10/case-worm.jpeg[/slide]
[/slider]

ক্রীড়াগুলো রাতের বেলায় পাতার সবুজ ক্লোরোফিল অংশ লম্বালম্বি এমনভাবে কুড়েকুড়ে খায় যে শুধুমাত্র উপরের পর্দাটি বাকী থাকে। এরা পাতার উপরের অংশ কেটে আড়াই থেকে তিন সেন্টিমিটার লম্বা চুঙ্গী তৈরী করে এবং দিনের বেলায় এ সমস্ত চুঙ্গীর মধ্যে লুকিয়ে থাকে। পাতা কুড়ে কুড়ে খাওয়ার জন্য এবং পাতা কেটে চুঙ্গী বানাবার ফলে আক্রান্ত গাছের পাতায় লম্বা সাদা দাগ ও পাতার আগা কাটা দেখতে পাওয়া যায়। চুঙ্গীগুলো আক্রান্ত গাছের গায়ে ঝুলতে থাকে এবং ক্ষেতের পানিতে ভাসতে থাকে।

আক্রমণের আগে করণীয়ঃ

# ক্ষেতে ডালপালা পুঁতে দেওয়া;
# শামুক, মাকড়সা ও বোলতা সংরক্ষণ করা।

আক্রমণ হলে করণীয়ঃ

# জমির পানি শুকিয়ে ফেলা কারণ চুঙ্গী পোকার ক্রীড়া পানি ছাড়া বাঁচতে পারেনা;

# আলোর ফাঁদের সাহায্যে পূর্ণ বয়স্ক মথ ধরে মেরে ফেলা;
# কেরোসিন মিশ্রিত রশি টান দিয়ে চুঙ্গী মাটিতে ফেলে দেওয়া;
# শতকরা ২৫ ভাগ পাতার ক্ষতি হলে অনুমোদিত কীটনাশক সঠিক মাত্রায় ব্যবহার করা। এ পোকার জন্য অনুমোদিত বালাইনাশক কতিপয় উদাহরণ নিম্নের ছকে তুলে ধরা হলোঃ-

গ্রুপের নাম বানিজ্যিক নাম ও ব্যবহার মাত্রা
কার্বারিল সেভিন ৮৫ SP (এপি-৩৩৮) বিঘা প্রতি ২২৭.৫ গ্রাম হারে অথবা
কার্বোসালফান মার্শাল (এপি-৯১) ২০ ইসি  বিঘা প্রতি ১৫০ মিলি হারে অথবা
ফেনিট্রথিয়ন ফেনিটক্স (এপি-৪)/সুমিথিয়ন (এপি-৫৪০)/ফলিথিয়ন (এপি-৩২) ৫০ ইসি বিঘা প্রতি ১৩৪ মিলি হারে অথবা
ম্যালাথিয়ন ফাইফানন  (এপি-১০) বিঘা প্রতি ১৫০ মিলি/সাইফানন (এপি-১৮১) ৫৭ ইসি বিঘা প্রতি ১৩৪ মিলি হারে অথবা


তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি), গাজীপুর, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ঢাকা এবং Farmers’ window ও www.google.com

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ১২, ২০১৬