[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/062.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/052.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/stem-borer.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/044.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/045.jpg[/slide]
[/slider]

পোকার আক্রমণের লক্ষণ:

আখের গোড়ার মাজরা পোকার ইংরেজি নাম Root Stock Borer এবং  .

পোকার আক্রমণের লক্ষণ:
প্রাথমিভাবে গাছের ৩য়-৪র্থ পাতা উপর দিক থেকে শুকাতে থাকে । মাইজ পাতা মরে যায় । মরা মাইজ টানলে সহজে উঠে আসে না । পরবর্তীকালে আক্রান্ত গাছের সব পাতাগুলো ক্রমশঃ হলুদ হয়ে শুকিয়ে যায় ।

আক্রমণের আগে করণীয়ঃ

১. গভীরভাবে জমি চাষ করুন
২. ফসল চক্র অনুসরণ করা বা একই জমিতে পরপর আখ চাষ না করা ।
৩. অধিক আক্রান্ত এলাকায় মুড়ি আখ চাষ স্থগিত রাখা ।

আক্রমণ হলে করণীয়ঃ

• আক্রান্ত গাছ মাটির নীচ থেকে পোকাসহ তুলে ধ্বংস করা ।
* সম্ভাব্য ক্ষেত্রে সেচ দিয়ে পানি কয়েক দিন ধরে রাখা ।
* পুরনো শুকানো পাতগুলো গাছ থেকে ছড়িয়ে ফেলা আগাম কর্তন অনুসরণ করা ।

* কর্তনের পর মোথাগুলো চাষ দিয়ে কোদাল দিয়ে তুলে পুড়িয়ে ধ্বংস করা ।
* আক্রমণ বেশি হলে প্রতি হেক্টর জমিতে কার্বোফুরান ৫ জি ৪০ কেজি হারে প্রয়োগ করা।

তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএসআরআই), ঈশ্বরদী, পাবনা এবং Farmers’ window

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১