পোকা আক্রমণের লক্ষণঃ

পূর্ণ বয়স্ক ও বাচ্চা উভয়ই ক্ষতি করে । চারা গাছ থেকে শুরু করে শেষ পর্যন্ত এরা পাতার রস খায় । আক্রান্ত পাতা বিবর্ণ হয় ।পাতা কুকড়ে যায়।

[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/12/bangi-whitefly-2.jpg[/slide]
[/slider]

পোকার সমন্বিত ব্যবস্থাপনাঃ

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

১. আগাছা পরিষ্কার রাখা;
২. সুষম সার ব্যবহার করা;
৩. রোগমুক্ত গাছ থেকে বীজ সংগ্রহ করা;

৪. ফসলের অবশিষ্টাংশ ধ্বংস করে ফেলা;

৫. সঠিক দুরত্বে চারা রোপন করুন।

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

# হাত জাল দ্বারা পোকা সংগ্রহ করে মেরে ফেলা।
# ক্ষেতে হলুদ রংএর আঠালো ফাঁদ লাগানো ।
# আক্রান্ত গাছে ছাই ছিটানো
# ০.৫% ঘনত্বের সাবান পানি অথবা ৫ মিলি তরল সাবান প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করা ।
# ৫০০ গ্রাম নিম বীজের শাঁস পিষে ১০ লিটার পানিতে ১২ ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে তা ছেঁকে আক্রান্ত ক্ষেতে স্প্রে করলে উপকার পাওয়া যেতে পারে ।
# পোকা দমনের জন্য সর্বশেষ ব্যবস্থা হিসাবে প্রতি লিটার পানিতে ডায়মেথোয়েট ৪০ ইসি ( রগর/ টাফগর/ সানগর/ পারফেকথিয়ন ) ১মিঃলিঃ বা এডমায়ার ১ মিঃলিঃ বা মেটাসিস্টক্স ১ মিঃলিঃ বা সবিক্রন ১মিঃলিঃ বা এসাটাফ- ১.৫ গ্রাম মিশিয়ে স্প্রে করা যেতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) এবং Farmers’ window

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১