[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/aphid-2-1.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/aphids.jpg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/11/aphidbug.jpeg[/slide]
[/slider]

ক্ষতির প্রকৃতি: 

বাচ্চা ও পূর্ণবয়স্ক উভয় অবস্থাতেই লেবু গাছের পাতার রস শোষণ করে ক্ষতি করে । ফলে লেবু গাছের সতেজ অবস্থা বাধাপ্রাপ্ত হয়, পাতা ভীষনভাবে কুঁকড়ে যায়, কচি পাতা বিকৃত হয়, আক্রান্ত কোমল শাখা বিভিন্নভাবে বেঁকে যায় এবং লেবু পাতা ও ডগা স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হয় ।এর আক্রমনে যে মধুরস নিঃসরণ করে তাতে সুটি মোল্ড ছত্রাকের আক্রমণ ঘটে।

পোকার আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ

  • গাছে পাতার উপর ও নিচ দিক দিয়ে ছাই ছিটানো।

পোকার আক্রমণের পর করণীয়ঃ

• লেবু বাগানে বড় আকৃতির হলুদ রঙের প্লাস্টিকের গামলা কীটনাশক মিশ্রিত পানি রেখে দিলে তাতে আকৃষ্ট হয়ে অনেক পাখাযুক্ত জাবপোকা গামলার পানিতে পড়ে মারা যায় । হলুদ রঙের আঠাফঁদ পেতে তাতে পাখাযুক্ত জাব পোকাদের আকৃষ্ট করে সংখ্যা কমানো যায়
• জাব পোকার বেশ কিছু প্রাকৃতিক শত্রু রয়েছে যেমন পরজীবী লেডি বার্ড বিটল, সিরফিড ফ্লাই, লেসউইং, ক্যারাবিড বিট্ল ও পরজীবী বোলতা । এসব উপকারী পোকা সংরক্ষণ অর্থাৎ কীটনাশকের ব্যাবহার পরিহার করতে পারলে জাব পোকা প্রাকৃতিক নিয়মেই নিয়ন্ত্রিত হয় ।
• আক্রমণের প্রাথমিক অবস্থায় শুকনো ছাই জাব পোকার গায়ের উপর ছিটিয়ে দিলে এদের সংখ্যা কমে যায় ।
• জাব পোকার সংখ্যা যখন কম থাকে তখন ঢোল কমলী পাতার নির্যাস স্প্রে করেও জাব পোকা দমন করা যায় । নির্যাস তৈরি করতে হলে কাঁচা ঢোল কলমীর পাতা সংগ্রহ করে ছায়ায় শুকিয়ে নিতে হবে । এরপর এই শুকানো পাতা ১ঃ৫ অনুপাত পানিতে যেমন ১ কেজি পাতা ৫ লিটার পানিতে মিশিয়ে ৫ মিনিট সিদ্ধ করা ঢোল কলমীর পাতা পানির মধ্যে কচলিয়ে সেই পানি ছেঁকে নিতে হবে । এভাবে তৈরি নির্যাস গাছের আক্রান্ত অংশে স্প্রে করে দিলে জাব পোকা মারা যাবে ।
• জাব পোকার আক্রমণ বেশি হলে কীটনাশক ব্যবহার করতে হবে । কৃষি বিজ্ঞানীদের পরামর্শ হলে একটি শাখা বা প্রশাখায় ৫০-১০০ টি জাব পোকা দেখা গেলে সেখানে স্প্রে করা যেতে পারে ।
• প্রতি লিটার পানিতে ১ মিলিলিটার এ্যাজাডিরেকটিন বা ২ মিলিলিটার ম্যালাথিয়ন ৫৭ ইসি অথবা ১মিলিলিটার অ্যাসিফেট+ফেনভেলারেট ২৮ ইসি মিশিয়ে স্প্রে করলে জাব পোকা দমন করা যায়্ ।
• শুষ্ক তামাক পাতা ভিজানো পানি স্প্রে করলে জাব পোকার আক্রমণ কমে যায় ।
• জাব পোকায় আক্রান্ত গাছে জোরালোভাবে পানি করে দিলে আক্রমণ কমে হয় ।
• উপকারী ও অপকারী পোকার সংখ্যা যাচাই করে কীটনাশক প্রয়োগের সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে হবে । যদি উপকারী পোকার সংখ্যা বেশি থাকে তা হলে কীটনাশক ব্যবহার করা উচিত নয় ।

তথ্যসূত্রঃ কৃষকের জানালা

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১