[slider width=”100%” height=”100%” class=”” id=””]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/12/stem-borer-1.jpeg[/slide]
[slide type=”image” link=”” linktarget=”_self” lightbox=”yes”]http://agrivisionbd.com/wp-content/uploads/2015/12/stem-borer.jpg[/slide]
[/slider]

পোকা আক্রমণের লক্ষণঃ

এই পোকা কীড়া লেবু গাছের ডগার মাঝখানে গর্ত খঁড়ে এবং এভাবে গর্ত খঁড়তে খঁড়তে প্রায় ২৫ মিলিমিটার পর্যন্ত উপরে উঠে যায় । আক্রান্ত ডগা মরে গেলে কীড়া দিক পরিবর্তন করে নিচের দিকে নেমে গাছের বড় বড় শাখায় প্রায় ৯ মিলিমিটার পরিমাণ সুড়ঙ্গের সৃষ্টি করে এবং মাঝে মাঝে গর্ত খুঁড়তে থাকে । সুড়ঙ্গ মুখে একপ্রকার আঁঠাল পদার্থ বের হয় । আক্রান্ত ডগা আস্তে আস্তে কালো হয়ে মরে যায় । ডগা মারা যাওয়ার পর কীড়া প্রধান কান্ডে সুড়ঙ্গের সৃষ্টি করে।

পোকার সমন্বিত ব্যবস্থাপনাঃ

আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ 

১.ফল সংগ্রহ শেষ হলে গাছের মরা ডালপালা, ফলের বোটা, রোগ বা পোকা আক্রান্ত ডাল পালা ও অতিঘন ডাল পালা ছাটাই করে পরিস্কার করে দিন
২. পরিস্কার করার পর একটি ছত্রাক নাশক ও একটি কীটনাশক দ্বারা পুরো গাছ ভালভাবে স্প্রে করুন
৩. নিয়মিত বাগান পরিদর্শন করুন

আক্রমণের পর করণীয়ঃ

• লেবু গাছ প্রায়ই পরীক্ষা করে দেখা দরকার এবং যদি কোথাও কোন পোকা দেখা যায় তাহলে তা ধরে মেরে ফেলতে হবে ।
• মরা ও আক্রান্ত ডগা কেটে সংগ্রহ করে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলতে হবে । সুড়ঙ্গের ভিতরে সুড়ঙ্গ প্রতি ৫-১০ মিলিলিটার ধুপনবিষ যেমন কার্বন বাইসালফাইড, ক্লোরোফর্ম, পেট্রোল ইত্যাদি ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে প্রবেশ কমিয়ে সুড়ঙ্গের মুখ কাদামাটি দিয়ে বন্ধ করে দিলে সুড়ঙ্গের ভিতরকার কীড়া ও পূর্ণবয়স্ক পোকা মারা পড়বে ।
• গর্তের মুখে কীড়া কাঠের গুড়া জমা করে । হঠাৎ করে গুড়া সরিয়ে গুড়ার নিচে লুকিয়ে থাকা কীড়া ধরে মেরে ফেলা যায় ।
• গর্তের মধ্যে প্যারাডাইক্লোরোবেনজিন ঢেলে দিয়ে এই পোকা দমন করা যায়।

তথ্যসূত্রঃ কৃষকের জানালা

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১